ভি আই লেনিন রচিত ধর্ম প্রসঙ্গে গ্রন্থের সূচিপত্র ও রুশ সংস্করণের ভূমিকা

ধর্ম প্রসঙ্গে

এই প্রবন্ধ সংকলনের লেখা আর বক্তৃতাগুলিতে লেনিন ধর্ম বিষয়ে প্রলেতারিয়েতের পার্টির কাজগুলি তুলে ধরেছেন। তিনি পুরোপুরি খুলে ধরেছেন ধর্মের সামাজিক শিকড়; ধর্ম আর বিজ্ঞানসম্মত বিশ্ববীক্ষা কিছুতেই খাপ খাওয়ান যায় না তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন; আর দেখিয়েছেন কিভাবে অতিক্রম করা যায় ধমীয় বদ্ধধারণা। আরো পড়ুন

লেভ তলস্তয় – রুশ বিপ্লবের দর্পণ

মহাশিল্পী যে-বিপ্লবকে[১] স্পষ্টতই বুঝতে পারেন নি, যার থেকে তিনি স্পষ্টতই রয়েছেন ফারাকে, তারই সঙ্গে তাঁকে এক করে দেখানটাকে আপাতদৃষ্টিতে অদ্ভুত এবং কৃত্রিম মনে হতে পারে। যে-দর্পণ সবকিছুকে সঠিকভাবে প্রতিফলিত করে না সেটাকে তো দর্পণ বলা শক্ত। আমাদের বিপ্লবটা কিন্তু অত্যন্ত জটিল জিনিস। এই বিপ্লব যারা সরাসরি ঘটাচ্ছে, এতে অংশগ্রহণ করছে, সেই জনসমূহের মধ্যেও বহু সামাজিক অঙ্গ উপাদান আছে আরো পড়ুন

যুব লীগের কর্তব্য

পুঁজিবাদী সমাজে জ্ঞান

১৯২০ সালের ২ অক্টোবর রাশিয়ার কমিউনিস্ট যুবলীগের তৃতীয় সারা রাশিয়া কংগ্রেসে ভাষণ (লেনিনের উদ্দেশে কংগ্রেসের তুমূল অভিনন্দনোচ্ছাস।)। কমরেডগণ, আমি আজ আলোচনা করতে চাই যুব কমিউনিস্ট লীগের মূল কর্তব্য কী এবং এই প্রসঙ্গেই, সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রে সাধারণভাবে যুবজনের কীরূপ সংগঠন হওয়া উচিত তাই নিয়ে। আরো পড়ুন

নারী-শ্রমিকদের প্রথম সারা রুশ কংগ্রেসে বক্তৃতা

(প্রচন্ড স্বাগতধ্বনি তুলে কংগ্রেসের নারী-শ্রমিকরা লেনিনকে অভিবাদন জানায়।) কমরেডগণ, কতকগুলি দিক থেকে প্রলেতারিয় ফৌজের নারী অংশের কংগ্রেসের বিশেষ জরুরি তাৎপর্য বর্তমান, কারণ সমস্ত দেশেই নারীদের আন্দোলনে আসা কঠিনতর হয়েছিল। সমাজতান্ত্রিক পরিবর্তন হতে পারে না যদি মেহনতি নারীদের বৃহত অংশটা তাতে ব্যাপকভাবে যোগ না দেয়। আরো পড়ুন

সমাজতন্ত্র ও ধর্ম

বর্তমান সমাজের ভিত্তি বিপুলসংখ্যক শ্রমিক শ্রেণির শোষণের উপর স্থাপিত। জনসমষ্টির অতিক্ষুদ্র এক অংশ—জমিদার ও পুঁজিপতি শ্রেণির দ্বারা তারা শোষিত। এ সমাজ দাসসমাজ। কারণ ‘মুক্ত’ শ্রমিকেরা সারা জীবন পুঁজির জন্য কাজ করে জীবিকানির্বাহের যেটুকু উপকরণের ‘অধিকার লাভ করে’ তা শুধু দাসপালনের পক্ষে একান্ত অপরিহার্য এবং এরাই পুঁজিবাদী দাসত্বের নিরাপত্তা ও চিরন্তনতার জন্য মুনাফা উৎপাদন করছে। আরো পড়ুন

রাশিয়ার কমিউনিস্ট পার্টি (বলশেভিক)-এর খসড়া কর্মসূচি থেকে ধর্ম প্রসঙ্গে

কর্মসূচিতে ধর্ম প্রসঙ্গে বিভাগ[১] ধর্ম প্রসঙ্গে, রাষ্ট্র থেকে গির্জা এবং গির্জা থেকে বিদ্যালয়ের বিচ্ছেদের বিজ্ঞপ্তি জারি করাতে, অর্থাৎ যেসব ব্যবস্থা সম্বন্ধে বুর্জোয়া গণতন্ত্রীরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কিন্তু পৃথিবীর কোথাও কখনোও পুরোপুরি কার্যে পরিণত হয়নি; পুঁজি আর ধর্মীয় প্রচারের মধ্যে বাস্তবিক বিদ্যমান বহু এবং বিবিধ সংযোগের দরুন সেগুলোতে গণ্ডিবদ্ধ না থাকাটা রাশিয়ার কমিউনিস্ট পার্টির কর্মনীতি। আরো পড়ুন

error: Content is protected !!