আপনি যা পড়ছেন
মূলপাতা > প্রাণ > উদ্ভিদ > লতা > বন ঢেকিয়া দক্ষিণ এশিয়ায় জন্মানো লতানো প্রজাতি

বন ঢেকিয়া দক্ষিণ এশিয়ায় জন্মানো লতানো প্রজাতি

Prefix

Info Box

বৈজ্ঞানিক নাম: Asplenium unilaterale Lamk., Encycl. 3: 305 (1756). ইংরেজি নাম: ফরেস্ট ফার্ন। স্থানীয় নাম: বন ঢেকিয়া। জীববৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae, বিভাগ: Tracheophytes. অবিন্যাসিত: Angiosperms.অবিন্যাসিত: Eudicots. বর্গ: Polypodiales. পরিবার: Aspleniaceae. গণ: asplenium, প্রজাতি: Asplenium unilaterale.

ভূমিকা: বন ঢেকিয়া (বৈজ্ঞানিক নাম: Asplenium unilaterale) হচ্ছে এশিয়ার গ্রীষ্মমণ্ডলীয় দেশের উদ্ভিদ। বাংলাদেশে এই প্রজাতির তথ্য অপ্রতুল।

বন ঢেকিয়া-এর বর্ণনা:

গ্রন্থিকন্দ পাতলা, সরু, লতানো। পত্রদন্ড গাঢ় বেগুনি-বাদামী, মসৃণ, চকচকে, ১০-১২ সেমি লম্বা, পত্রক অক্ষ একই বর্ণের, প্রতি পার্শ্বে সরু ডানা সহ উপরে গভীরভাবে খন্ডিত।

পত্রফলক আকারে বিভিন্ন, সাধারণতঃ প্রায় ২৫ সেমি লম্বা এবং ৬ সেমি চওড়া, সবচাইতে নিচের পত্রক পরবর্তী উপরেরটির সমান অথবা সামান্য ছোট; সাধারণতঃ কিছুটা প্রতিবর্তী, উপরের পত্রক সরু, দীর্ঘার্থী খন্ডিত শীর্ষে হঠাৎ হ্রাসকৃত।

পত্রক প্রায় ২৫ জোড়া, অত্যন্ত ক্ষুদ্র বৃন্ত যুক্ত, ছড়ানো, কাছাকাছি তবে উপরিপন্ন নয়, উপরের গোড়া চওড়া কীলকাকার অথবা প্রায় কর্তিতা, সামান্য সকর্ণ, প্রান্তসহ নিচের গোড়া পত্রকের দৈর্ঘ্যের ১/৪ থেকে ১/২ পর্যন্ত মধ্যশিরার কাছে;

শীর্ষ সরু হয়ে ভোঁতা অথবা সামান্য সূক্ষ্ম শীর্ষে পরিণত, উপরের প্রান্ত এবং নিচের প্রান্তের দূরস্ত অংশ নিয়মিত অগভীর ভেতা দন্তযুক্ত,

সবচাইতে বড় পত্রক প্রায় ৩.৫ সেমি লম্বা এবং গোড়ায় চওড়া, বয়ণ পাতলা, শিরা উভয় পৃষ্ঠেই সুস্পষ্টভাবে উত্তোলিত, মধ্যশিরা অন্যান্যগুলি হতে পুরু।

সোরাস সাধারণতঃ অসংখ্য, শিরার মধ্যাংশে অবস্থিত, সোরাসছত্র পাতলা। রেণু গাঢ় বর্ণের, চওড়া, মচমচে, সূক্ষ্ম দপ্তর স্বচ্ছ ডানা বিশিষ্ট।

ক্রোমোসোম সংখ্যা: n = ৪০ (Manton and Sledge, 1954)।

আবাসস্থল ও বংশ বিস্তার:

ভেঁজা স্যাতসেঁতে স্থানে, শিলা, নদীর তীর অথবা চুনা পাথর। বংশবিস্তার হয় গ্রন্থিক এবং রেণু দ্বারা

বন ঢেকিয়া-এর বিস্তৃতি:

পূর্ব আফ্রিকা হতে প্যাসিফিক, উত্তর ভারত, চীন, জাপান, ভূটান এবং নেপাল। বাংলাদেশে চট্টগ্রাম জেলা থেকে ১৮৮০ সালে এই প্রজাতি সংগ্রহ করা হয়েছে।

আরো পড়ুন:  ঘোড়া গুলঞ্চ লতা বাংলাদেশসহ এশিয়ার এক উপকারি ঔষধি লতা গাছ

বর্তমানে এই নমুনাটি যুক্তরাজ্যের কিউ উদ্ভিদ সংরক্ষণাগারে (Kew Herbarium) সংরক্ষিত আছে। (Mirza and Rahman, 1997)

অন্যান্য তথ্য:

বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের  ৫ম খণ্ডে (আগস্ট ২০১০) বন ঢেকিয়া প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, আবাসস্থল ধ্বংসের জন্য এই প্রজাতিটি বাংলাদেশে সংকটাপন্ন হিসেবে বিবেচিত।

বাংলাদেশে বন ঢেকিয়া সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে এই প্রজাতিটির ব্যাপক অনুসন্ধানের মাধ্যমে অবস্থান নির্ধারণ করে যথাস্থানে সংরক্ষণ প্রয়োজন।

তথ্যসূত্র:

১. মমতাজ মহল মির্জা (আগস্ট ২০১০) “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস” আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। খন্ড ৫ম, পৃষ্ঠা ৩৫৮-৩৫৯। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

বি. দ্র: ব্যবহৃত ছবি liberianfaunaflora.org থেকে নেওয়া হয়েছে।

Dolon Prova
জন্ম ৮ জানুয়ারি ১৯৮৯। বাংলাদেশের ময়মনসিংহে আনন্দমোহন কলেজ থেকে বিএ সম্মান ও এমএ পাশ করেছেন। তাঁর প্রকাশিত প্রথম কবিতাগ্রন্থ “স্বপ্নের পাখিরা ওড়ে যৌথ খামারে”। বিভিন্ন সাময়িকীতে তাঁর কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া শিক্ষা জীবনের বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কাজের সাথে যুক্ত ছিলেন। বর্তমানে রোদ্দুরে ডট কমের সম্পাদক।

Leave a Reply

Top
You cannot copy content of this page