হলদে চন্দ্রপ্রভা বা টেকোমা চিরসবুজ আলংকারিক উদ্ভিদ

ভূমিকা:  চন্দ্রপ্রভা বা টেকোমা (বৈজ্ঞানিক নাম: Tecoma stans  ইংরেজি : Yellow Trumpet Bush) এটি বিগনোনিয়াসি পরিবারের টেকোমা গণের এলোমেলোভাবে বেড়ে ওঠা গুল্ম। বাড়িতে বা বাগানের সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য লাগানো হয়।   

বৈজ্ঞানিক নাম: Tecoma stans (L.) Juss. ex Kunth in H. B. & K., Nov. Gen. Sp. 3: 144 (1819). সমনাম: Stenolobium stans L. (1753), Stenolobium stans (L.) D. Don (1823). ইংরেজি নাম: Yellow Elder, Yellow Trumpet Bush, Yellowbells, Gingerthomas. স্থানীয় নাম: হলদে চন্দ্রপ্রভা বা হলদে টেকোমা। জীববৈজ্ঞানিকশ্রেণীবিন্যাসজগৎ/রাজ্য: Plantae. বিভাগ: Tracheophyta. অবিন্যাসিত: Edicots. অবিন্যাসিত: Asterids. বর্গ: Lamiales. পরিবার: Bignoniaceae. গণ: Tecoma.প্রজাতি: Tecoma stans.     

হলদে চন্দ্রপ্রভা উদ্ভিদের বর্ণনা:

হলুদ চন্দ্রপ্রভা ঋজু গুল্ম, কান্ড মসৃণ, বায়ুর সুস্পষ্ট। পত্র একক পক্ষল, প্রতিমুখ তির্যক, সবৃন্তক, বৃন্ত প্রায় ৪ সেমি লম্বা, পত্রক ৩-৭ টি, শীর্ষের পত্রকটি বৃহত্তম, উপরের পত্র সরল মূলীয় অংশ জুলাগ বা সরু, শীর্ষ সূক্ষ্মাগ্র বা দীর্ঘাগ্র, প্রান্ত দপ্তর, দীর্ঘায়ত-ভল্লাকার, দৈর্ঘ্য ১৪  ও প্রস্থ ৬ সেমি, পক্ষল শিরাযুক্ত। ফুলের বিন্যাস রেসিম, ৫-১২ সেমি লম্বা ও মসৃণ। ফুল খাটো বৃন্তযুক্ত, উভলিঙ্গ, সম্পূর্ণ।

বৃতি ঘন্টাকার, খাটো ৫-খন্ড যুক্ত, সবুজ। দলমন্ডল বৃহৎ, নালিকাকৃতি-ঘন্টাকার, দূরবর্তী অংশ ৫-খন্ডিত, প্রান্ত-আচ্ছাদী, উজ্জ্বল হলুদ, প্রায় ৫ সেমি লম্বা, সুগন্ধি। পুংকেশর ৪ টি, দীর্ঘদ্বয়ী, পরাগধানী ২-কোষী, অপসারী, হলুদ, পুংদন্ড প্রায় ২ সেমি লম্বা, দললগ্ন, অভ্যন্তরে সন্নিবেশিত। গর্ভপত্র ২ টি, যুক্ত, গর্ভাশয় ০.৫ সেমি লম্বা, ২-কোষী, গর্ভদন্ড ১ টি, ২.৫ সেমি লম্বা, গর্ভমুন্ড ১ টি, চ্যাপ্টা। ফল ক্যাপসিউল, রৈখিক, প্রায় ২০ সেমি লম্বা, অর্ধগোলাকার থেকে চ্যাপ্টা। বীজ অনেক, রৈখিক সারিতে বিন্যস্ত, পাতলা চাকতিসম, পক্ষল, স্বচ্ছ।

ক্রোমোসোম সংখ্যা:

2n = ৩৬, ৪০ (Kumar and Subramaniam, 1986).

হলদে চন্দ্রপ্রভা উদ্ভিদের বংশ বিস্তার ও চাষাবাদ:

ফুল ও ফল ধরে মে ও ডিসেম্বর মাসে। হলুদ চন্দ্রপ্রভা খরা সহনশীল এবং উষ্ণ জলবায়ুতেও ভাল জন্মে। এর ফুলগুলি মৌমাছি, প্রজাপতি এবং হামিংবার্ডসহ ছোট পাখিদের আকর্ষণ করে। এদের বীজ পাখির মাধ্যমে চারণ ভূমিতে পতিত হয় এবং অনেকদূর পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে চন্দ্রপ্রভা গ্রীষ্ম-বর্ষা ও শরৎ-হেমন্তে ফুটলেও কিছু কিছু গাছে বছরের অন্যান্য সময়েও হঠাৎ দু’একটি ফুল ফুটতে দেখা যায়। এই ফুলগাছ দ্রুত বাড়ে।

বিস্তৃতি:

মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকায় আদিনিবাস। বর্তমানে অনেক দেশে দেশ্যভূত। বাংলাদেশে উদ্যানে চাষ করা হয়। এই গণের আরেকটি প্রজাতির নাম লাল চন্দ্রপ্রভা

অর্থনৈতিক ব্যবহার ও গুরুত্ব:

সুন্দর হলুদ ফুলের জন্য সর্বত্র বাহারি গুল্মরূপে ব্যাপক চাষাবাদ হয়। পাতার নির্যাস Candida albicans (yeast) এর বৃদ্ধি রহিত করে।

অন্যান্য তথ্য:

বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষের ৭ম খণ্ডে  (আগস্ট ২০১০)  হলুদ চন্দ্রপ্রভা বা টেকোমা প্রজাতিটির সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, এদের শীঘ্র কোনো সংকটের কারণ দেখা যায় না এবং বাংলাদেশে এটি আশঙ্কামুক্ত হিসেবে বিবেচিত। বাংলাদেশে হলুদ চন্দ্রপ্রভা সংরক্ষণের জন্য কোনো পদক্ষেপ গৃহীত হয়নি। প্রজাতিটি সম্পর্কে প্রস্তাব করা হয়েছে যে এই প্রজাতিটির বর্তমানে সংরক্ষণের প্রয়োজন নেই।   

তথ্যসূত্র:

১. এম এ হাসান (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস” আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ০৭ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা  ২৯। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

বি.দ্র: ছবিটি নেওয়া হয়েছে উইকিমিডিয়া কমন্স থেকে। আলোকচিত্রী: Judgefloro

আরো পড়ুন:  নীল ঝাঁটি বা বনমালী বাংলাদেশে জন্মানো ভেষজ গুল্ম

Leave a Comment

error: Content is protected !!