এ্যাপোসিয়েনাসি সপুষ্পক গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদের একটি পরিবারের নাম

ভুমিকা: এ্যাপোসিয়েনাসি পরিবারে প্রায় ২০০টি গণ ও ২০০০টি প্রজাতি নিয়ে গঠিত, গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ও উষ্ণমণ্ডলীয় অঞ্চলে এর প্রজাতিগুলো ব্যাপকভাবে বিস্তৃত।

জীববৈজ্ঞানিকশ্রেণীবিন্যাসজগৎ/রাজ্য: Plantae. বিভাগ: Tracheophyta. শ্রেণী: Magnoliopsida. বর্গ: Gentianales. পরিবার: Apocynaceae. গণ: Aganosma.

বিবরণ:

এই পরিবারের প্রজাতিরা সাধারণত পাকানো গুল্ম, কদাচ বৃক্ষ বা সাধারন গুল্ম হয়।  বিরলক্ষেত্রে বীরুৎ বা দুগ্ধবৎ তরুক্ষীর বা জলীয় রস বিশিষ্ট সরস। পাতা সরস, প্রতিমুখ বা চক্রবর্তী, বিরলক্ষেত্রে একান্তর বা সর্পিল, অখন্ড। পক্ষ শিরিত, অনুপপত্রী, মধ্যশিরার নিম্নাংশে গ্রন্থিল থাকে।

ফুল:

ফুলের বিন্যাস কাক্ষিক বা প্রান্তীয় দ্বি-শাখা সাইম বা অনিয়ত, কখনও কখনও ফুলের বিন্যাস কমে গিয়ে এক বা দুইটি কাক্ষিক ফুল ফোটে। ফুল সাধারণত পঞ্চাংশক, উভলিঙ্গ, কমবেশী নিয়মিত, মঞ্জরীপত্রযুক্ত বা দৃশ্যতঃ মঞ্জরীপত্রবিহীন।

বৃতি অধোবর্তী, ৫-খন্ডকযুক্ত বা বিরলক্ষেত্রে ৪-খন্ডকযুক্ত, কখনও কখনও বিচ্ছিন্ন বৃতি, খন্ডসমূহ সমান বা অসমান, প্রান্ত -আচ্ছাদী, প্রায়শঃ নিম্নাংশের অভ্যন্তরে গ্রন্থিল। দলমণ্ডল যুক্তদল, প্রায়শঃ থলিকাকার, খন্ডসমূহ ৫টি, ব্যবর্তিত বা বিরলক্ষেত্রে প্রান্ত-আচ্ছাদী, কুঁড়ি অবস্থায় ডান বা বামে ছড়িয়ে থাকে।

পুংকেশর ৫টি, সাধারণত দলমণ্ডল নলের নিম্নাংশে সন্নিবেশিত, অন্তর্ভূক্ত বা বহিঃগামী, পুংদন্ড অতি খর্ব বা অনুপস্থিত, পরাগধানী ২-কোষী, প্রায়শঃ বীণাকার, গর্ভমুণ্ডের চারপাশে মুক্ত বা একত্রে সন্নিবেশিত কিন্তু বিযুক্ত, লম্বভাবে বিদারী। যোজক প্রায়শঃ শীর্ষে তৈরী হয়। পরাগরেণু দানাদার। চক্র অর্থাৎ ফলক যদি থাকে তবে বলয়াকার।

গর্ভাশয় ঊর্ধ্ববর্তী বা উপ-অধোবর্তী, গর্ভপত্র ২টি, মুক্ত বা যুক্তগর্ভপত্রী একটি গর্ভমুণ্ডে সমাপ্ত হয়, অধিকাংশ ক্ষেত্রে এককোষ্ঠী বা দ্বিকোষ্ঠী প্রাচীরগাত্রীয় অমরাবিন্যাস বিশিষ্ট, বিরলক্ষেত্রে অক্ষীয় অমরাবিন্যাস বিশিষ্ট, দ্বিকোষ্ঠী, ২ থেকে বহু-ডিম্বক বিশিষ্ট। ফল ফলিকুলার, ক্যাপসিউল, সিউলি বেরি বা ড্রপ জাতীয়, সাধারণত ২টি, কখনও কখনও বিলুপ্ত হওয়ার ফলে একল। বীজ ১ থেকে বহু, রোমশ, সপক্ষ বা শীর্ষে গুচ্ছিত, বীজোপাঙ্গ বিহীন।।

বাংলাদেশের অবস্থায়:

বাংলাদেশে এ্যাপোসিয়েনাসি গোত্রের ২৭টি গণ ও ৪৬ টি প্রজাতি রয়েছে। মালতী লতা এই পরিবারের একটি পরিচিত ফুল।

তথ্যসূত্র:

১. এম আতিকুর রহমান (আগস্ট ২০১০)। “অ্যানজিওস্পার্মস ডাইকটিলিডনস” আহমেদ, জিয়া উদ্দিন; হাসান, মো আবুল; বেগম, জেড এন তাহমিদা; খন্দকার মনিরুজ্জামান। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ। ০৬ (১ সংস্করণ)। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ১৮৩। আইএসবিএন 984-30000-0286-0

বি.দ্র: ছবিটি নেওয়া হয়েছে উইকিমিডিয়া কমন্স থেকে। আলোকচিত্রী: Dinesh Valke

আরো পড়ুন:  অক্সালিডাসি হচ্ছে সপুষ্পক উদ্ভিদের একটি পরিবারের নাম

Leave a Comment

error: Content is protected !!