ময়মনসিংহ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে জীববৈচিত্র বিষয়ক সচেতনতা কর্মসূচি পালিত

ময়মনসিংহ সরকারি কলেজ (পূর্বনাম: গভ. কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট) ময়মনসিংহ-এ উদ্ভিদ ও প্রাণী রক্ষার উদ্দেশ্যে নানা ধরনের জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি পালিত হয়েছে গত ৩ এপ্রিল ২০১১ তারিখ রোজ রবিবার। দিনব্যাপি ‘জীববিচিত্রা’র আয়োজনে উক্ত অনুষ্ঠানে  ছাত্রছাত্রীদেরকে উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা প্রদান করার উদ্দেশ্যে অনেকগুলো কার্যক্রম গ্রহণ করে সংগঠনটি।

ময়মনসিংহ সরকারি কলেজে প্রাণবৈচিত্র্য রক্ষার কর্মসূচি

উক্ত অনুষ্ঠানে ৩০০ প্রজাতির উদ্ভিদের নাম সম্বলিত লিফলেট বিতরণ, বাংলাদেশের ৬৫৪ প্রজাতির পাখি ও ১২০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণীর আলোকচিত্র প্রদর্শন, উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপর রচিত পুস্তক প্রদর্শন, পাখির বাসা তৈরির উদ্দেশ্যে গাছে গাছে কলস ঝুলানো এবং জীববৈচিত্র রক্ষার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পেপারকাটিং প্রদর্শন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করেন কলেজের শিক্ষক প্রকৃতিবিদ ও কবি অনুপ সাদি।

প্রতিটি কার্যক্রমে সহায়তা করেন কলেজের অধ্যক্ষ জনাব এম,এ,এম, জাকির হোসেন। তাঁর ঐকান্তিক আগ্রহে এরকম একটি অনুষ্ঠান সুসম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠানে তিনি আগ্রহ সরকারে প্রতিটি কাজ তদারকি করেন। তিনি নিজে কলস ঝুলানোর কার্যক্রম দেখেন।

এছাড়াও পাখিপ্রেমি আহম্মদউল্লাহ কলসে পাখির বাসা তৈরির উদ্দেশ্যে গাছে কলস ঝুলানোর পদ্ধতি হাতে কলমে ছাত্রছাত্রীদের শেখান এবং ময়মনসিংহ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনসহ ময়মনসিংহ শহরের বিভিন্ন স্থানে মোট ২৫টি কলস ঝুলিয়ে দেন।

অনুষ্ঠান শেষে একটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রকৃতিবিদ ও কবি অনুপ সাদি বলেন পাখি থাকলে মাছ থাকবে, ফুল ফুটবে, ফল ধরবে, পরাগায়ন হবে, ঋতুবৈচিত্র থাকবে, সর্বোপরি বাংলাদেশ টিকবে। অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ আহম্মদউল্লাহ বলেন, তিনি শৈশবকাল থেকেই পাখির প্রতি সহানুভূতি দেখান। পাখির উপরে অসীম আগ্রহ তাঁকে পাখি রক্ষায় অনুপ্রাণিত করে। তিনি তাঁর কাজকে দেশের সর্বত্র ছড়িয়ে দেবার উদ্দেশ্যে ছাত্রছাত্রীদের সহযোগিতা কামনা করেন।

অধ্যক্ষ জনাব এম,এ,এম, জাকির হোসেন বলেন ময়মনসিংহ সরকারি কলেজের প্রাকৃতিক পরিবেশ মনোরম। এখানে অন্তত ৫০ প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। শত শত পাখি প্রতিরাতে কলেজের গাছগুলোতে আশ্রয় নেয়। এখানে একটি টিকটিকিও মারা হয় না। দুর্লভ ও বিপন্ন প্রজাতির উদ্ভিদের অনেকগুলো গাছ রোপণ করা হয়েছে।

আরো পড়ুন:  ৯০টি কচ্ছপ গড়াই নদীতে অবমুক্ত

অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা প্রদান করেন এবং প্রকৃতিকে স্বাভাবিক রাখার জন্য অনুরোধ করেন গভ. কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ জনাব এম, এ, এম, জাকির হোসেন ও সহকারী অধ্যাপক জনাব রেদওয়ানুর রহমান। বিকেলে জয়নুল আবেদীন পার্কসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে একই ধরনের কর্মসূচি পালিত হয়।

Leave a Comment

error: Content is protected !!