নাগরিক এ্যালবামে একটি প্রেমীদিনের প্রতিচ্ছবি

আমাদের কোনো অভিমানে ভরা চোখ ছিলো না সেদিন
নিলাম্বর নাম ধরে ডাকতে চেয়েছিলো এশহর
বাঁক ঘুরানো রাস্তাগুলোতে প্রেমময়রেখা এঁকে দিয়ে
কোমল মুখ জোড়া উজ্জ্বল হয়েছিলো।

আমাদের অভিধানে নতুন অনেক কথা জমেছে
তাই অচেনা কোনো হাসিতে ঠোঁট ছুঁয়ে গেছে,
মুগ্ধতা নিয়ে সেদিন একজোড়া চোখ তাকিয়েছিলো,
আর মুঠো মুঠো আদরেরা ছাতিমের মতো ঘ্রাণ ছড়িয়েছিলো।

যাত্রীহীন রিক্সাগুলো দাঁড়িয়ে আছে
তুমি বন্ধু হবে কি?
হিমেল হাওয়ার নগর ভবনের গায়ে লেপ্টে থাকে
সঙ্গী হবে কি?
সিগন্যালগুলো অনুকূলে আছে
প্রেমী হবে কি?

আবার যেদিন দেখা হবে
সেদিন কৃষ্ণচূড়া ফুটবে,
আবার যেদিন দেখা হবে
সেদিন নগর জেগে থাকবে,
আবার যেদিন দেখা হবে
ভালোবাসার আবির থাকবে গালে।

এদিন আমরা বিপদগলির কাছে দাঁড়িয়ে থাকবো
সুখেরা ডানা মেলে আমাদের ঈশারা দিবে
কমলা রোদের রহস্যময় হাসি ছুঁয়ে গেলেও
শরীরগুলো ভয় পাবে না।

এমন কোনো ‘একদিনের’ জন্য তোমার শঙ্খমালা সুর বাঁধছে,
চিহ্নহীন গলি অক্সিজেন ভরে রাখছে নিজের থলিতে,
নির্জনতা বিদায়ের জন্য ঘুঙুর রেখে যাচ্ছে,
আর আমাদের জন্য তৈরি হচ্ছে নাগরিক এ্যালবাম।

২১ জানুয়ারি, ২০২৩
সারদাঘোষ রোড, ময়মনসিংহ।

আরো পড়ুন:  কুমোরপাড়ার চাঁদ ও বাঁশিওয়ালা

Leave a Comment

error: Content is protected !!