অনুপ সাদি বাংলাদেশের একজন লেখক, কবি, প্রাবন্ধিক, সম্পাদক ও আলোকচিত্রী

অনুপ সাদি (জন্ম: ১৬ জুন, ১৯৭৭) বাংলাদেশের একজন লেখক, কবি, প্রাবন্ধিক, সম্পাদক, প্রকৃতিপ্রেমি, আলোকচিত্রী এবং সাম্যবাদী ধারার চিন্তাবিদ। তিনি সমাজতন্ত্র, সাম্যবাদ, মার্কসবাদ, গণতন্ত্র, সংস্কৃতি, সাহিত্য, পরিবেশ বিষয়ে লেখালেখি করছেন। তিনি বাংলাদেশের ক্রম ক্ষয়িষ্ণু মার্কসবাদী আন্দোলনের সময়ে নিজেকে মার্কসবাদী সাম্যবাদী আন্দোলনে যুক্ত করেন এবং সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সম্পৃক্ত হয়েছেন।

একজন লেখক হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবার আগে তিনি বিভিন্ন পত্রিকার প্রতিবেদক ও শিক্ষক প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করেছেন। যদিও তিনি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনেই তিনি লেখালেখিকে গ্রহণ করেন, কিন্তু তার বই প্রকাশিত হতে থাকে শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালনের বছর খানেকের ভেতরেই। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি প্রাচ্য স্বৈরতন্ত্রের বিরুদ্ধে কলমযোদ্ধা হিসেবে অনবরত লিখে চলেছেন। তিনি বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালের জনগণের জীবনযাত্রা গভীর মনোনিবেশের সংগে দেখার জন্য এই তিনটি দেশ ভ্রমণ করেন। এই ভ্রমণের অভিজ্ঞতা তার লেখালেখি ও অধ্যাপনায় প্রভাব ফেলেছে।

জন্ম শৈশব ও শিক্ষা

অনুপ সাদি ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর থানার দামোল গ্রামে ১৯৭৭ দালের ১৬ জুন জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম সাবের আলী ও মাতার নাম শাহেরা খাতুন। চার ভাইবোনের মধ্যে তিনি কনিষ্ঠ। তার বড় ভাই মো. আবদুল ওদুদ একজন স্বনামধন্য লেখক।

অনুপ সাদি বীরগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৯৮৪ সালে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং ১৯৮৮ সালে পঞ্চম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হন। তিনি ১৯৮৯ সালে রণহাট্টা চৌরংগী উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং সেখান থেকেই ১৯৯৪ সালে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমাজবিজ্ঞান বিভাগে ১৩তম স্থান অধিকার করে এস এস সি পাস করেন। তিনি ১৯৯৪ সালে ঢাকা কলেজে পড়াশোনা শুরু করেন এবং ১৯৯৬ সালে ঢাকা কলেজ থেকে মানবিকে এইচ এস সি পাস করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে ২০০০ সালে ইংরেজি সাহিত্যে সম্মানসহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়াও তিনি ২০১৮ খ্রিস্টাব্দে নেপালের পোখরা বিশ্ববিদ্যালয় হতে উচ্চ শিক্ষায় Socio-political Worldview of George Bernard Shaw বিষয়ক অভিসন্দর্ভ লিখে এমফিল ডিগ্রি অর্জন করেন।

আরো পড়ুন:  বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ শতকের বাংলা সাহিত্যে কথাসাহিত্যিক

কর্মজীবন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে তিনি সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। রাজনীতির সূত্রে তিনি ২০০২ সালের জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে শামসুন নাহার হলে পুলিশী নির্যাতনের বিরুদ্ধে গড়ে উঠা আন্দোলনে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব প্রদান করেন। ২০০৩ সালের আগস্ট মাসের তৃতীয় সপ্তাহে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে ২৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে গড়ে ওঠা সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন।

১৫ অক্টোবর, ২০০৩ তারিখে তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের English language Teaching Improvement Project (ELTIP)-এ শিক্ষক প্রশিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। প্রথম চাকুরিতে কর্মস্থল ছিলো চট্টগ্রাম টিচার্স ট্রেনিং কলেজ। পরে ২০ ডিসেম্বর, ২০০৩ তারিখে তাকে কুষ্টিয়া জেলা স্কুল ELTIP SRC-তে পদায়ন করা হয়। তিনি ১ নভেম্বর, ২০০৪ তারিখ থেকে বাংলা সাহিত্যের কর্মী হিসেবে কাজ শুরু করেন। এখনও তিনি লিখে চলেছেন।

অনুপ সাদি রচিত ও প্রকাশিত গ্রন্থসমূহ

অনুপ সাদির প্রকাশিত গ্রন্থগুলো দশটির উপরে। তার অনেকগুলো বইকে তিনি ই-বই আকারেও প্রকাশ করেছিলেন। এছাড়াও তিনি রোদ্দুরে এবং ফুলকিবাজ ডট কমের নিয়মিত লেখক।

মূল নিবন্ধ: অনুপ সাদি গ্রন্থাবলী বা অনুপ সাদি রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থসমূহ

একসময় অনুপ সাদি ব্লগে লিখতেন। তিনি তার প্রাণকাকলি ব্লগে ২৬ জানুয়ারি ২০১২ সালে লেখা শুরু করেন এবং এপ্রিল ২০১৭ পর্যন্ত লিখেছেন। সেই ব্লগে তিনি প্রায় ৮০০ নিবন্ধ রচনা করেছিলেন যেগুলো শিক্ষামূলক, পরিবেশ বিষয়ক এবং তার কবিতা।

অনুপ সাদির ১৫টি বক্তৃতা শুনুন নিচের ইউটিউব থেকে

অনুপ সাদির ভাষণসমূহ

বাংলা উইকিপিডিয়ায় অনুপ সাদির অবদান

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে তিনি বাংলা উইকিপিডিয়া ব্যবহার শুরু করেন এবং সেদিনই কিছু নিবন্ধ লিখতে আরম্ভ করেন। তিনি আগস্ট ২০২০ পর্যন্ত ৪০,০০০টির বেশি সম্পাদনা করেছেন এবং মোট আলোকচিত্র যুক্ত করেছেন প্রায় ১৫০০টি। সেপ্টেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত তিনি নতুন নিবন্ধ লিখেছেন প্রায় ১৬০০টি।

Leave a Comment

error: Content is protected !!