রনচণ্ডি নদী বাংলাদেশের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের পঞ্চগড় জেলার তেতুলিয়া উপজেলার নদী

রনচণ্ডি নদী বা রামচণ্ডি নদী বা রামচণ্ডী নদী[১] বা রনচন্ডি নদী (ইংরেজি: Ranchondi River) বাংলাদেশের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের পঞ্চগড় জেলার তেতুলিয়া উপজেলার একটি নদী।[২] নদীটির দৈর্ঘ্য ৫ কিলোমিটার, গড় প্রস্থ ৮ মিটার এবং নদীটির প্রকৃতি সর্পিলাকার। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা “পাউবো” কর্তৃক রামচণ্ডি নদীর প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ১০২।

রনচণ্ডি নদী বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার তেতুলিয়া উপজেলার তীরনইহাট ইউনিয়নের ডাগরবাড়ি বিল থেকে উৎপত্তি লাভ করেছে। উৎপত্তি লাভের পর এটি প্রায় তিন কিলোমিটার অতিক্রম করেছে এবং একই উপজেলার তেতুলিয়া ও তীরনইহাট ইউনিয়নের সীমানা হিসেবে সামান্য জায়গা অতিক্রম করেছে। প্রবাহপথে রনচন্ডি বাজারের কাছে এই নদী জাতীয় মহাসড়ক ৫ অতিক্রম করেছে। মহাসড়ক অতিক্রম করার পর প্রায় চারশ মিটার পশ্চিমে মহানন্দা নদীতে পতিত হয়েছে।

রনচণ্ডি নদীতে সারা বছর পানি প্রবাহ থাকে না, মৌসুমি প্রকৃতির এই নদীতে বর্ষা মৌসুমে যথেষ্ট পানি প্রবাহিত হয়। নদীটি বন্যাপ্রবণ বা ভাঙনপ্রবণ নয় এবং শুকনো মৌসুমে নদীটি শুকিয়ে যায়। শুকনো মৌসুমে নদীটি শুকিয়ে যায় এবং নদীর কিছু এলাকাজুড়ে ধান চাষ করা হয়। পলির প্রভাবে এ নদী ক্রমান্বয়ে ভরাট হয়ে যাচ্ছে এবং পূর্বের তুলনায় এই নদীর প্রবহমানতা অনেকটা হ্রাস পেয়েছে।

রনচন্ডি বাজার এই নদীর তীরে অবস্থিত। এছাড়াও ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় এই নদীর তীরে অবস্থিত। এই নদী অববাহিকায় তিরনই-রামচণ্ডি-তুলাশিয়া সেচ প্রকল্প আছে। তবে নদীতে কোনো রেগুলেটর নেই। এই নদীতে কোনো বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নেই। এই নদীর উপর ছয়টি ছোট ছোট ব্রিজ এবং জাতীয় সড়ক ৫ এর উপর একটি সেতু আছে।

আলোকচিত্রের ইতিহাস: পঞ্চগড়ের রণচণ্ডী অঞ্চলের গুগল আর্থের এই নদীর প্রবাহ পথের এই স্ক্রিনশটটি গ্রহণ করেছেন অনুপ সাদি ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে।

তথ্যসূত্র:

১. ম ইনামুল হক, বাংলাদেশের নদনদী, অনুশীলন ঢাকা, জুলাই ২০১৭, পৃষ্ঠা ৪৫।
২. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক (ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। “উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী”। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি (প্রথম সংস্করণ)। ঢাকা: কথাপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ১৫৮। আইএসবিএন 984-70120-0436-4।

আরো পড়ুন:  ভেরসা নদী বাংলাদেশ, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তরবঙ্গের আন্তঃসীমান্ত নদী

Leave a Comment

error: Content is protected !!