সিপিএমের প্রকাশ কারাত উপদল বিজেপি থেকে ১০০ কোটি রুপি পেয়েছে, অভিযোগ

কেরালার প্রাক্তন সিপিএম লোকসভার সাংসদ এ পি আব্দুল্লাকুট্টি এক আশ্চর্যজনক অভিযোগ করেছেন যে, দেশে ধর্মনিরপেক্ষ ভোটকে বিভক্ত করতে বিজেপির কাছ থেকে সিপিএমের প্রকাশ কারাত উপদল ১০০ কোটি রুপি পেয়েছে। আবদুল্লাকুট্টি তার অফিসিয়াল ফেসবুক পৃষ্ঠায় এক পোস্টে দাবি করেন যে, সম্প্রতি-অনুষ্ঠিত রাজস্থান রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে এটি সংঘটিত হয়েছে। খবর দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের

আবদুল্লাকুট্টি ১৯৯৯-২০০৯ সময়ে সিপিএম-এর টিকেটে দুইবারের লোকসভায় কান্নুর আসনে প্রতিনিধিত্ব করেন, এবং পার্টি থেকে বহিষ্কারের পূর্ব পর্যন্ত সেই পদে ছিলেন। তিনি লিখেছেন যে, দিল্লিতে তার পুরানো কমরেড বন্ধুর কাছ থেকে শুনেছেন সেই ‘কষ্টকর উক্তি’ যেটিতে প্রকাশ পেয়েছে যে, সিপিএম রাজস্থানে বিজেপি প্রার্থীদের ভোট দিয়েছে, আদতে যেসব ভোট কংগ্রেস পার্টিতে যেত।

“রাজস্থানতে মাত্র ২৪ জন প্রার্থী দাঁড় করিয়ে, সিপিএম প্রায় ৪ লাখ ধর্মনিরপেক্ষ ভোট বিভক্ত করতে সহায়তা করে। এটি ছিল সিপিএমের সেরকম উপস্থিতি যা বিজেপি প্রার্থীদের তিনটি আসনে জিততে সাহায্য করেছিল। পিলিবঙ্গা আসনে বিজেপির ধর্মেন্দ্র কুমার নিকটতম কংগ্রেস প্রার্থীকে ২৭৮ ভোটে পরাজিত করে। এখানে, সিপিএম প্রার্থী ২৬৫৯টি ধর্মনিরপেক্ষ ভোট পেয়েছে।” ২০০৯ সালে কংগ্রেসে যোগদানকারী আবদুল্লাকুট্টি দাবি করেছেন, “বেশিরভাগ জায়গায়ই তারা তাদের নিজস্ব জামানত সুরক্ষিত করতে পারেনি, যদিও দলটি যেখানে কোটি কোটি রুপি অর্জন করে সেসব জায়গায় দুর্দান্ত খেলা খেলেছে।”

কংগ্রেসের নেতা অভিযোগ করেছেন যে, সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি এই বিষয়ে পার্টির অভ্যন্তরে আলোচনার বিষয়ে উদ্বিগ্ন আছেন।

২০০৯ সালে আবদুল্লাকুট্টির সাথে সিপিএমের জাতীয় নেতৃত্বের গুরুতর মতপার্থক্য দেখা দেয়, ফলশ্রুতিতে তিনি সিপিএম থেকে বেরিয়ে আসার পর কংগ্রেসে যোগ দেন এবং কংগ্রেসের টিকেটে কান্নুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে একটি উপনির্বাচনে জয়লাভ করেন। তিনি ২০১১ সালের বিধানসভার নির্বাচনে কান্নুরের আসন থেকে নিকটতম সিপিএম প্রার্থীকে পরাজিত করে পুনরায় জয়লাভ করেন। ২০১৬ সালে, তাকে থালাসেরি এলাকাতে স্থানান্তরিত করা হয় যেখানে তিনি সিপিএমের এএন শামসিরের কাছে পরাজিত হন।

আরো পড়ুন:  ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির ইতিহাস হচ্ছে ভারতের বিপ্লবী আন্দোলনের ইতিহাস

Leave a Comment

error: Content is protected !!